রবিবার, ২৩শে জুন, ২০২৪

সর্বশেষ

মেসির জোড়া অ্যাসিস্টে ফাইনালে মায়ামি

স্পোর্টস ডেস্ক

আরও একটি রোমাঞ্চকর ম্যাচ, আরেকবার মেসি ম্যাজিক। এবার আর্জেন্টাইন তারকা সরাসরি গোল করতে না পারলেও তার সহায়তায় হয়েছে জোড়া গোল। আর তাতেই ইউএস ওপেন কাপের সেমিফাইনালে নির্ধারিত ও যোগ করা সময়ে সিনসিনাটির বিপক্ষে ৩-৩ গোলে সমতা থাকার পর টাইব্রেকারে ৫-৪ গোলে জিতে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ইন্টার মায়ামি।

এদিন ম্যাচের এক সময় ২–১ গোলে এগিয়ে এফসি সিনসিনাটি। শেষ বাঁশি বাজতে আর সর্বোচ্চ মিনিট দুয়েক বাকি। ঠিক তখনই বাঁ প্রান্ত থেকে নিখুঁত ক্রস বাড়ালেন মেসি। বলটা বাতাসে ভাসতে ভাসতে ইন্টার মায়ামি ফরোয়ার্ড লিওনার্দো কাম্পানার মাথায় এমনভাবে গিয়ে পড়ল যেন প্লেটে তুলে দেওয়া গোল! সেই গোলেই সমতায় ফেরে মায়ামি।

স্কোরকার্ডে গোলদাতার পাশে কাম্পানার নাম লেখা থাকলেও ওই গোলে মেসিকেই মনে রাখবেন সবাই। ২–২ গোলে মায়ামি সমতায় ফেরার পর ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। এরপর ৯৩ মিনিটে বেঞ্জামিন ক্রেমাশির পাস থেকে বক্সের ভেতর থেকে নেওয়া শটে গোল করে মায়ামিকে ৩–২ গোলে এগিয়ে দেন হোসেফ মার্তিনেজ।

যদিও নাটকীয় এই ম্যাচে শেষ অংকের চিত্রনাট্য তখনও শেষ হয়নি। অতিরিক্ত সময়ে পরের অর্ধে ১১৪ মিনিটে বক্সের ভেতর থেকে বল ‘ক্লিয়ার’ করতে পারেননি মায়ামির ডিফেন্ডার। সুবিধামতো জায়গায় বল পেয়ে ডান পায়ের বাঁকানো শটে গোল করে ম্যাচের স্কোর ৩–৩ করেন সিনসিনাটির জাপানি অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার ইয়ুয়া কুবো।

এর আগে লুসিয়ানো অ্যাকোস্তার ১৮ মিনিটে করা গোলে প্রথমার্ধ শেষে ১–০ গোলে এগিয়ে ছিল সিনসিনাটি। ৫৩ মিনিটে ব্রান্ডন ভাসকেজের গোলে সেটাই ২–০। মায়ামি এখান থেকে মেসির দুই ‘অ্যাসিস্ট’ এ ঘুরে দাঁড়ালেও রোমাঞ্চকর এই ম্যাচের নিষ্পত্তি হয়েছে টাইব্রেকারে।

সেখানে সিনসিনাটিকে ৫–৪ গোলে হারিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমান ফুটবল প্রতিযোগিতাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে পুরোনো টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠেছে তাতা মার্তিনোর শিষ্যরা। ঠিক আগের ম্যাচটাও টাইব্রেকারে জিতেছিল মেসির দল, ন্যাশভিলকে হারিয়ে হাতে তুলেছে লিগস কাপের ট্রফি।

মায়ামির হয়ে ৮ ম্যাচে ১০ গোলের পাশাপাশি ৩টি গোল করালেন মেসি। যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার পর আজই প্রথম গোল পাননি আর্জেন্টাইন তারকা।

আরও পড়ুন