রবিবার, ২৩শে জুন, ২০২৪

সর্বশেষ

খুলনার সেই মায়ের মুক্তি নিয়ে যে বার্তা দিল অ্যামনেস্টি

আমেরিকায় পিএইচডি গবেষক বুয়েটের সাবেক শিক্ষার্থী তানজিলুর রহমানের ফেসবুক স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে খুলনায় তার মা আনিছা সিদ্দিকাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। সেই সঙ্গে গ্রেপ্তার ওই নারীকে অবিলম্বে মুক্তির দাবি জানিয়েছে সংস্থাটি।
সংস্থাটির দক্ষিণ এশিয়ার প্রচারণার ভারপ্রাপ্ত ডেপুটি আঞ্চলিক পরিচালক বাবু রাম পান্ত বলেছেন, সরকারের সমালোচনা করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেলের পোস্টের পর অবিলম্বে মাকে গ্রেপ্তার করা হাস্যকর। সামনে জাতীয় নির্বাচন এর আগে এ ধরনের ঘটনা অবিশ্বাসের পরিবেশ তৈরি করেছে।

তিনি বলেন, সরকারকে অবিলম্বে আনিছা সিদ্দিকাকে মুক্তি দিতে হবে। একই সঙ্গে ভিন্নমত প্রকাশকরাীদের নির্বিচারে আটক করার প্রবণতা বন্ধ করতে হবে। কারণ ভিন্ন রাজনৈতিক মতামত রাখা এবং প্রকাশ করা কোনো অপরাধ নয়।

মঙ্গলবার (২২ আগস্ট) ৫৪ বছরের ওই নারীকে খুলনা সিএমএম তরিকুল ইসলামের আদালতে নেওয়া হলে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করেন। এরপর তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

এর আগে গত ২০ আগস্ট খুলনার খালিশপুর থানা পুলিশ অন্তর্ঘাতমূলক ষড়যন্ত্র করার জন্য সমবেত হওয়ার অভিযোগে আনিছা সিদ্দিকাসহ (৪৫) তিনজনকে গ্রেপ্তার করে। তবে গ্রেপ্তার নারীর স্বামী আলমগীর শিকদারের দাবি, তার স্ত্রী কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত নন। তার ছোট ছেলে তানজিলুর রহমান আমেরিকায় পিএইচডি গবেষণারত এবং বুয়েটের সাবেক শিক্ষার্থী। আমেরিকায় বসে ফেসবুকে মানবতাবিরোধী অপরাধে আমৃত্যু কারাদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে নিয়ে বিভিন্ন স্ট্যাটাস দেওয়ায় খুলনায় তার মাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। একইসঙ্গে দুজন ভাড়াটিয়া প্রতিবাদ করতে আসায় তাদের বিশেষ ক্ষমতা আইনে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

গ্রেপ্তারের পর খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, খালিশপুর থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে অন্তর্ঘাতমূলক ষড়যন্ত্র করার জন্য সমবেত হওয়ার জন্য বিপুল পরিমাণ ধর্মীয় উগ্রপন্থি বিভিন্ন বই, পত্রিকা, ম্যাগাজিন, রেজিস্টার ও অন্তর্ঘাতমূলক ষড়যন্ত্র করার কাজে ব্যবহৃত ৩টি ল্যাপটপ, পাসপোর্ট ও ৪টি মোবাইল ফোনসহ বিভিন্ন মালামাল নিয়ে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তাররা হলেন- মো. রকিবুল ইসলাম (২৪), মো. তামিম ইকবাল (১৯) ও আনিছা সিদ্দিকা (৪৫)। গ্রেপ্তারদের বিরুদ্ধে খালিশপুর থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করা হয়।

আরও পড়ুন