রবিবার, ২৩শে জুন, ২০২৪

সর্বশেষ

সারা বিশ্ব এখন বাংলাদেশ অবাধ, সুষ্টু, অংশগ্রহণমূলক ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন দেখতে চায়- ডা. শাহাদাত

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহবায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, বর্তমানে শুধু দেশের মানুষ নয়, সারা বিশ্ব এখন বাংলাদেশ অবাধ, সুষ্টু, অংশগ্রহণমূলক ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন দেখতে চায়। এই চাওয়াটা এখন শুধু কয়েকজন বিশ্বনেতার মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। সেটা এখন বিশ্বের ১৬০ জন বিশ্ব নেতার মধ্যে আলোচিত হচ্ছে।চট্টগ্রামের গর্ব নোবেল বিজয়ী ড. মো. ইউনুসের হয়রানী মূলক মামলা স্থগিত করে দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য চিটি দিয়েছেন। আওয়ামী লীগের পালাবার জায়গা নেই। তারা দেশের জনগণের জন্য কিছুই করেনি। জনগণের টাকা লুটপাট করে বিদেশে পাচার করেছেন।বিদেশে অট্টালিকা বানিয়েছেন। এগুলোর হিসাব দেশের মানুষের কাছে আছে। কড়ায় গন্ডায় হিসাব দিতে হবে। কাউকে ক্ষমা করা হবে না।

তিনি আগামী শুক্রবার বিকাল ৩ টায় কাজীর দেউরী নুর আহম্মেদ সড়ক থেকে শুরু হওয়া বিএনপির র‍্যালী ও শনিবার বিকাল ৩ টায় কাজীর দেউরী সমাদর কমিউনিটি সেন্টারে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আলোচনা সভা সফল করার আহবান জানান।

তিনি মঙ্গলবার (২৯ আগষ্ট) বিকালে নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয়ের মাঠে আগামী ১ সেপ্টেম্বর বিএনপির ৪৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কর্মসূচি সফল করার লক্ষে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির প্রস্তুতি সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, দেশের মানুষ যখন একজন শিল্পপতি ব্যবসায়ীর বিদেশে টাকা পাচারের কথা শুনতে শুনতে পত্রিকার খবর গরম হয়ে ওঠেছিল, এর মধ্যে সালমান এফ রহমান সবার চোখকে ফাকি দিয়ে জনতা ব্যাংক থেকে ২২ হাজার কোটি টাকা নিয়ে গেল। তিনি আগেও শেয়ারবাজার লুটপাট করেছিল। এদের একটা সিন্ডিকেট আছে। এরা হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে।বিদ্যুতের কুইক রেন্টালের নামে লুটপাট করে সংসদে আবার এর দায়মুক্তি আইন করে করেছে, যাতে তাদের বিচার করতে না পারে। সবকিছু জায়েজ করার জন্য তারা সংবিধান কাটাকাটি করতে পারে। সংবিধান এখন শুধু তত্ত্বাবধায়ক সরকারের জন্য সীমাবদ্ধ। আমরা বলতে চাই, সংবিধানের সুস্পষ্ট ভাবে লেখা আছে দেশের সংকটকালে রাষ্ট্রপতি চাইলে সংসদ ভেঙ্গে দিলে সংসদ সদস্যদের আর কোন কাজ থাকবে না। স্বয়ংক্রিয়ভাবে মন্ত্রিসভা ভেঙে যাবে। তখন নতুন মন্ত্রিসভা গঠন করতে পারে। একটি অন্তর্বর্তীকালীন সরকার সংবিধানের মধ্যে দিয়ে সৃষ্টি হতে পারে। কিন্তু আওয়ামী লীগ গায়ের জোরে ক্ষমতায় থাকতে চায়।

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাসেম বক্কর বলেন, দেশের এক কঠিন সময়ে আমরা বিএনপির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করছি।শত বাধা বিপত্তি, চড়াই উতরাই পেরিয়ে বিএনপি আজকে জনগণের শক্তি, জনগণের দল হিসেবে সারা বিশ্বের কাছে পরিচিত পেয়েছে। তারেক রহমানের নেতৃত্বে মাফিয়া সরকারের বিরুদ্ধে এক দফার আন্দোলন করছে। আজকে সারা বিশ্ব বাংলাদেশের নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে আছে। আগামী শুক্রবার বিএনপির র‍্যালী হবে আন্দোলনের অংশ হিসেবে প্রতিপাদের মধ্য দিয়ে। শেখ হাসিনার পদত্যাগের এক দফা দাবিতে আমাদের লড়াই চলবে।

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য মো. কামরুল ইসলামের পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সি. যুগ্ম আহবায়ক আলহাজ্ব এম এ আজিজ, যুগ্ম আহবায়ক সৈয়দ আজম উদ্দীন, এস এম সাইফুল আলম, শফিকুর রহমান স্বপন, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, মো. শাহ আলম, ইসকান্দর মির্জা, আবদুল মান্নান, আহবায়ক কমিটির সদস্য জয়নাল আবেদীন জিয়া, হাজী মো. আলী, মাহবুব আলম, নিয়াজ মো. খান, ইকবাল চৌধুরী, আশরাফ চৌধুরী, আর ইউ চৌধুরী শাহীন, আহমেদুল আলম চৌধুরী রাসেল, আনোয়ার হোসেন লিপু, গাজী মো. সিরাজ উল্লাহ, মন্জুর আলম চৌধুরী মন্জু, মহানগর যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন দিপ্তী, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এইচ এম রাশেদ খান, সাধারন সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলু, বিভাগীয় শ্রমিকদলের সাধারণ সম্পাদক শেখ নুরুল্লাহ বাহার, মহানগর বিএনপি নেতা জিএম আইয়ুব খান, এস এম জি আকবর, থানা বিএনপির সভাপতি মো. আজম, হাজী মো. সালাউদ্দীন, আবদুল্লাহ আল হারুন, ডা. নুরুল আবছার, থানা সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব জাকির হোসেন, মনির আহম্মেদ চৌধুরী, আবদুল কাদের জসিম, রোকন উদ্দিন মাহমুদ, কেন্দ্রীয় জাসাসের সদস্য আমিনুল ইসলাম, মহানগর বিএনপি নেতা, হাজী নুরুল আকতার, ডা. এস এম সারোয়ার আলম, দিদারুল আলম, মো. আলী, মো. ইসমাইল, জিয়াউদ্দীন খালেদ চৌধুরী, একেএম পেয়ারু, আবদুল হালিম স্বপন, ইকবাল হোসেন, মো. ইদ্রিস আলী, খোরশেদ আলম কুতুবী, মো. শাহজান, আজাদ বাঙ্গালি, ইউনুছ চৌধুরী হাকিম, আবু মুছা, নকিব উদ্দিন ভূঁইয়া, মোস্তাফিজুর রহমান বুলু, আলী আজম চৌধুরী, ইউছুপ শিকদার, কেন্দ্রীয় শ্রমিকদলের সাংগঠনিক সম্পাদক শম জামাল উদ্দিন, কৃষকদলের আহবায়ক মো. আলমগীর, সদস্য সচিব কামাল পাশা নিজামী, ছাত্রদলের আহবায়ক সাইফুল আলম, সদস্য সচিব শরিফুল ইসলাম তুহিন, তাঁতীদলের আহবায়ক মনিরুজ্জামান টিটু, সদস্য সচিব মনিরুজ্জামান মুরাদ, মৎস্যজীবী দলের আহবায়ক নুরুল হক প্রমূখ।

আরও পড়ুন