রবিবার, ২৩শে জুন, ২০২৪

সর্বশেষ

তরুণ তরুণীদের আলোর ভরসা দেখাচ্ছেন ,”রাসেল আহমদ রকি”

 রাসেল আহমদ অল্প বয়সে প্রায় শতাধিক তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান করেছেন। ফ্রিল্যান্সার হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন, নিজের প্রতিষ্ঠান RARocky Lance a যুক্ত করেছেন শতাধিক তরুণ-তরুণী, গৃহিণী কে। RARocky Lance কর্মীদের মাসিক বেতন দেয় প্রায় দশ লক্ষ টাকা। রাসেল আহমদ এর জন্ম নাঙলকোট উপজেলায় ও বেড়ে ওঠা চট্টগ্রাম জেলায়। বাবা এ্যাডভোকেট পেয়ার আহমদ পেশা আইনজীবী, মা রেহানা আক্তার গৃহিনি। ছোট ভাই রায়হান আহমদ, রোহান আহমদও ছোট বোন ফারজানা আক্তারকে নিয়ে বাবার ছোট্ট সংসার। তাই পরিবারের চিন্তা কখনও করতে হয়নি রাসেল আহমদকে। স্কুলে পড়ার সময়ই তার ছিল প্রযুক্তি নিয়ে ঝোঁক ।

এলাকায় রাসেল আহমদ ( রকি) নামডাক ছিল একটা কারণে—প্রযুক্তির প্রতি তাঁর আগ্রহ থাকায় এলাকায় কারও স্মার্টফোন ও ল্যাপটপ কম্পিউটার বিগড়ে গেলে রাসেল আহমদ ( রকি) খোঁজ পড়ত। খুশি মনে রাসেল আহমদ ( রকি) সারিয়ে দিতেন। রাসেল আহমদ ( রকি) যখন দশম শ্রেণির ছাত্র। ইচ্ছা হলো কম্পিউটার চালানো শেখার। স্থানীয় প্রশিক্ষণকেন্দ্রে তিন মাসের কম্পিউটার কোর্স করলেন। রাসেল আহমদ বলেন, ‘শুরুতে কোনো কিছু বুঝতাম না। গুগল ও ইউটিউব ঘেটে শিখতে লাগলাম। সফলতার চেয়ে ব্যর্থতাই বেশি হতে লাগল। এখনকার মতো তখন এত কোর্সের ব্যবস্থাও ছিল না।

অনেক ইচ্ছে ছিল সফটওয়্যার -ডেভেলপমেন্টের ওপর কাজ করব। সেটাতে খুব বেশি সফলতা না আসায় ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের ওপর কাজ করতে থাকি। এরপর পর্যায়ক্রমে এসইওর কাজ শিখে এগোতে থাকি। বর্তমানে প্রতি মাসে লাখ টাকা আয় হয়। তরুণ ফ্রিল্যান্সার রাসেল আহমদ এখন ঘরে বসেই চাকরি করছেন চায়না , ডুবাই এবং ইন্ডিয়ান প্রতিষ্ঠানে। বর্তমানে তিনি ডুবাই একটি ডিজিটাল মার্কেটিং এজেন্সিতে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (এসইও) স্পেশ্যালিস্ট হিসেবে কর্মরত। এমনকি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস ফাইবার ও আপওয়ার্কে টপ রেটেড ফ্রিল্যান্সার হিসেবে যুক্ত আছেন। নিজে আয় করার পাশাপাশি তরুণদের বেকারত্ব দূর করার স্বপ্ন দেখাচ্ছেন রাসেল আহমদ।

তিনি মনে করেন, দেশের চাকরির বাজারে ঘুরে হতাশ না হয়ে ফ্রিল্যান্সিং করে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পাশাপাশি দেশের অর্থনীতিকে একধাপ এগিয়ে নেওয়া সম্ভব। তাই চট্টগ্রাম এবং নাঙলকোট উপজেলায় ‘RARocky Lance’ নামে প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গড়ে তুলেছেন। এমনকি অনলাইনে ক্লাস পরিচালনার মাধ্যমেও আগ্রহী তরুন- তরুণীদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন। এরই মধ্যে দেশের প্রায় শতাধিক তরুণ-তরুণী তার হাত ধরে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে গড়ে উঠেছেন।

এছাড়াও অনলাইনে ‘Rasel ahmed’ নামে ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজ এবং ইউটিউব চ্যানেল আছে। সেখানে লাইভ ক্লাস নেওয়ার মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ক বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিচ্ছেন। এরই মধ্যে দেশের প্রায় শতাধিক তরুণ-তরুণী তার হাত ধরে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে গড়ে উঠেছেন। এছাড়াও অনলাইনে ‘Rasel Ahmed’ নামে ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজ এবং ইউটিউব চ্যানেল আছে। সেখানে লাইভ ক্লাস নেওয়ার মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ক বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিচ্ছেন। রাসেল আহমদ বলেন, ‘ফ্রিল্যান্সিংয়ে মূলত বিদেশি কোম্পানি ও ক্রেতা-বিক্রেতার সঙ্গে কাজ করতে হয়। সে ক্ষেত্রে ইংরেজি দক্ষতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাছাড়া ফ্রিল্যান্সিংয়ে সফল হতে ধৈর্যশীল হতে হবে। কারণ ফ্রিল্যান্সিং করে রাতারাতি কোটিপতি হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। ধৈর্য ধরে লেগে থাকতে হবে এবং ভাষাগত দিকসহ বিভিন্ন বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করতে হবে।’

আরও পড়ুন