রবিবার, ২৩শে জুন, ২০২৪

সর্বশেষ

তামিমকে বাদ দিয়েই বিশ্বকাপের স্কোয়াড

বড় কোন টুর্নামেন্টের আগে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ও ক্রিকেটারদের যেন নাটক শুরু হয়। কেউ হুট করেই অবসরে চলে যান, কেউ বা ইনজুরির দোহাই দিয়ে সরে যান দল থেকে। কেউ বা সতীর্থের সঙ্গে অভিমান করে সরে আসেন খেলা থেকে। আবার কাউকে দেখা যায় টুর্নামেন্টে খেলতে বোর্ডকে শর্ত জুড়ে দিতে।

এসকল নাটকের সঙ্গে বোর্ডের নিয়মিত ধারাবাহিক নাটকের বিশেষ পর্ব ‘দল ঘোষণা’ তো আছেই।

দরজায় কড়া নাড়ছে ওয়ানডে বিশ্বকাপ। বৈশ্বিক এই টুর্নামেন্টকে সামনে রেখে ইতোমধ্যেই ক্রিকেটারদের নাটকের সঙ্গে শুরু হয়েছে বোর্ডের ধারাবাহিক নাটকের বিশেষ পর্বটি। সব কিছু ঠিক থাকলে মঙ্গলবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সমাপ্তি ঘটতে পারে বোর্ডের ধারাবাহিক নাটকের বিশেষ পর্বটির।

দল ঘোষণার একদিন আগে হুট করেই নিজেকে আনফিট বলে দাবি করেন অবসর কাটিয়ে ফেরা জাতীয় দলের ওপেনার তামিম ইকবাল। একইসঙ্গে টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের জার্সি গায়ে সবগুলো ম্যাচ খেলতেও আপত্তি জানান তিনি। জানা গেছে বিশ্বকাপের রাউন্ড রবিন লিগ পর্বে সর্বোচ্চ পাঁচটি ম্যাচ খেলবেন তিনি এমনটা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন তামিম টিম ম্যানেজমেন্টকে।

একইসঙ্গে তিনি দাবি করেন এখনও তিনি শতভাগ ফিট হয়ে উঠতে পারেননি। তাই সেভাবেই টিম ম্যানেজমেন্টকে বিশ্বকাপের রণ পরিকল্পনা সাজাতে বলেন বাঁহাতি এই ব্যাটার।

তামিমের এই সিদ্ধান্ত খুব একটা ভালোভাবে নেননি টাইগার দলপতি সাকিব আল হাসান। যে কারণে সোমবার (২৫ সেপ্টেম্বর) হেড কোচ হাথুরুসিংহেকে সঙ্গে নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসেন তিনি।

এদিকে বোর্ডের একটি সূত্র জানিয়েছে ‘আনফিট’ তামিমকে বিশ্বকাপের দলে দেখতে চাননা হাথুরুসিংহেও। যে কারণে শেষ পর্যন্ত তামিম থাকবেন কিনা বিশ্বকাপের দলে সেটি নিয়ে জেগেছে সংশয়।

সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে মঙ্গলবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বোর্ড সভাতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় তামিমকে বাদ দিয়েই বিশ্বকাপের দল চূড়ান্ত করার। আর সে কারণেই দেশসেরা ওপেনারকে রেখেই বিশ্বকাপের বিমানে চাপবে বাংলাদেশ।

আরও পড়ুন