সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

সর্বশেষ

হত্যা-ষড়যন্ত্রের মত গুজব সন্ত্রাসেও বিএনপি পাইওনিয়ার: শেখ পরশ

বিএনপি-জামাত কর্তৃক পুলিশ হত্যা, কাকরাইল মসজিদ ও রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স হাসপাতালে অগ্নিসংযোগ, প্রধান বিচারপতির বাসভবনে ও সাংবাদিকদের ওপর হামলা ও অবৈধ অবরোধের প্রতিবাদে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরের অন্তর্গত সংসদীয় আসন ভিত্তিক অবস্থান কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

বৃহস্পতিবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরে মিরপুর-১২ বাস স্ট্যান্ডে এই অবস্থান কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত অবস্থান কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন-বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরশ বলেন, বিএনপি একটি অবৈধ সংগঠন, যাদের জন্ম এবং উৎপত্তি অবৈধভাবে হয়েছে। কিভাবে তাদের প্রতিষ্ঠাতা অবৈধভাবে মিলিটারি অ্যাক্ট ভঙ্গ করে এই সংগঠন সৃষ্টি করেছেন তা আপনারা জানেন। জিয়াউর রহমান ছিল অবৈধ ক্ষমতা দখলকারী। বিএনপির সৃষ্টির প্রক্রিয়া ও পন্থা দুটোই অবৈধ ছিল। জিয়াউর রহমান অবৈধভাবে সেই হত্যা-ক্যু’র মাধ্যমে মিলিটারি অ্যাক্ট ভঙ্গ করে সেনা প্রধান হিসেবে চাকুরিরত অবস্থায় বিএনপি গঠন করেছিলেন। তাই বাংলার যুবসমাজের বিএনপির নিবন্ধন বাতিল করে সংগঠনটিকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করার দাবি অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক, ন্যায়সঙ্গত এবং যৌক্তিক।

তিনি আরও বলেন, অবৈধ, অনির্বাচিত সরকার বসাতে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি একটা বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনের মত অবৈধ অবরোধ এবং হরতাল দিচ্ছে। তারা গোপনে দেশবিরোধী ভিডিও বার্তা ছড়িয়ে দিচ্ছে। দেশবিরোধী নানা ধরণের গুজব ছড়াচ্ছে। হত্যা-ষড়যন্ত্রের মত গুজব সন্ত্রাসেও বিএনপি পাইওনিয়ার।

তিনি আরও বলেন, বিএনপি ছাড়াই নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক হতে যাচ্ছে। ওদের অনেক নেতাই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছে এবং করবে। এখন ঐ অবৈধ সংগঠনের মূল উদ্দেশ্য এই নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করা। সে ব্যাপারে আমাদের সচেতন থাকতে হবে।

তিনি বলেন, বিএনপি’র মত অবৈধ সংগঠন নির্বাচনে না আসলে কিছু আসে যায় না। অন্য বিরোধী দল সৃষ্টি হবে। বিকল্প বিরোধী দল, স্বাধীনতার সপক্ষের বিরোধী দল আমরা স্বাগত জানাই। যারা মুক্তিযুদ্ধে বিশ্বাস করে, যারা জামাত বিরোধী, এমন বিরোধী দল আজকে যুবসমাজের প্রত্যাশা। যারা ধর্মনিরপেক্ষতা, সমাজতন্ত্র, গণতন্ত্র এবং জাতীয়তাবাদের বিশ্বাসী সেই রকম রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ প্রত্যাশা করে। যারা বাংলাদেশের সংবিধানে বিশ্বাসী এবং জনগণের আশা-আকাক্সক্ষার প্রতিফলন ঘটাবে।

তিনি বলেন, বিএনপির নির্বাচনে আসার গড়িমসির একাধিক কারণ আছে (ক) শেখ হাসিনার সরকারের উন্নয়ন, (খ) অগ্নিসন্ত্রাস, জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষকতা ইত্যাদির কারণে জনগণ তাদের প্রত্যাখান করেছে। একারণেই তারা নির্বাচনে আসতে ভয় পাচ্ছে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন-বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ মাইনুল হোসেন খান নিখিল। সভাপতিত্ব করেন-ঢাকা মহানগর যুবলীগ উত্তরের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকির হোসেন বাবুল। সঞ্চালনা করেন-সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইসমাইল হোসেন।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন-যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোঃ রফিকুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ সোহেল পারভেজ, প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, দপ্তর সম্পাদক মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক বিপ্লব মুস্তাফিজ, উপ-দপ্তর সম্পাদক মোঃ দেলোয়ার হোসেন শাহজাদা, উপ-ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন, উপ-তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি সম্পাদক এন আই আহমেদ সৈকত, কার্যনির্বাহী সদস্য ইঞ্জি. মোঃ মুক্তার হোসেন চৌধুরী কামাল, ইঞ্জি. আবু সাঈদ হিরো, হুমায়ুন কবির, অ্যাড. শকতও হায়াত।

আরও পড়ুন