শনিবার, ১৩ই জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ

পুরুষ না নারী, মুখ ফুটে কে প্রথম ভালোবাসার কথা বলেন?

কে প্রথম কাছে এসেছে? বিয়ের পরও এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজে চলেন অনেকেই। স্বামী আগে এগিয়েছেন না কি স্ত্রীই প্রথম মনের কথা খোলসা করছেন, তা নিয়ে দুজনের মধ্যে একটা চাপা বিতর্ক চলতেই থাকে। কিন্তু কেউই মুখে ফুটে স্বীকার করেন না, প্রেমের প্রস্তাব প্রথম কার কাছ থেকে এসেছিল।

প্রেমিক যুগল কিংবা দম্পতিরা এ বিষয়ে মুখে কুলুপ আঁটলেও গবেষণা কিন্তু বলছে অধিকাংশ সময় ছেলেরাই মনের কথা আগে প্রকাশ করেন। গবেষণাটি প্রকাশিত হয়েছে স্যাজ জার্নাল অব সোশ্যাল অ্যান্ড পার্সোনাল রিলেশনশিপ নামের একটি পত্রিকায়। গবেষণা জানাচ্ছে, ভালোবাসি এই কথাটি সাধারণত প্রথম জানান ছেলেরাই।

গবেষণাটি হয়েছিল অনলাইনে। এতে অংশ নিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়া, ব্রাজিল, চিলি, কলোম্বিয়া, ফ্রান্স, পোল্যান্ড এবং লন্ডনের তিন হাজার প্রাপ্তবয়স্ক। সকলকে আলাদা আলাদা কিছু প্রশ্নপত্র পাঠানো হয়েছিল। উত্তরপত্র ফেরত আসার পর এবং সকলের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বেশিরভাগ দেশে পুরুষেরাই প্রথম ভালোবাসার পথে হেঁটেছেন। শুধু তা-ই নয়, উল্টো দিকের মানুষটিকে নিজের করে পাওয়ার জন্য পরিশ্রমও করেছেন প্রচুর।

গবেষণায় উঠে এসেছে আরও কিছু চমকপ্রদ তথ্য। কাউকে ভাল লাগার ৬৯ দিনের মাথায় পুরুষেরা মনের কথা জানিয়ে দেন। সেখানে মহিলারা ৭৭ দিন পার হলেও বুঝে উঠতে পারেন না তিনি আদৌ পছন্দ করেন কিনা। তবে পুরুষেরা প্রথমেই সরাসরি আক্ষরিকভাবে ভালবাসার কথা জানান না। কাব্য করে কিংবা অন্য কোনও রূপকের সাহায্য মনের ভাব প্রকাশ করেন। কিন্তু পছন্দের মানুষটিকে আই লাভ ইউ বলতে বেশি সময়ও নেন না। সম্পর্ক শুরুর ১০৭ দিনের মাথায় লিখে হোক কিংবা ফোনে অথবা সামনাসামনি ভালোবাসার কথা জানিয়ে দেন।

পূর্বের একটি গবেষণা জানাচ্ছে, মনের কথা চেপে না রাখে তা দ্রুত বলে দেওয়ায় বেশি বিশ্বাসী মার্কিন পুরুষরা। কেউ যদি মনে আলোড়ন তোলেন, কারও কথা যদি শয়নে-স্বপনে-জাগরণে বার বার মনে পড়ে, কাউকে চোখের দেখা দেখার জন্য যদি উতলা হয় মন, তা হলে আর দেরি করেন না তারা। বলে দেন ভালোবাসার কথা।

 

আরও পড়ুন