শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

সর্বশেষ

জাতীয় পার্টি আ.লীগের সঙ্গে থাকতে পারে-তথ্যমন্ত্রীর বক্তব্যের জবাবে যা বললেন চুন্নু

এবারের নির্বাচনেও জাতীয় পার্টি আওয়ামী লীগের সঙ্গে থাকতে পারে- তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু বলেছেন, উনি হয়তো আবেগে বলতে পারেন। আমরা তো জোট, মহাজোটের না। আমরা এককভাবে নির্বাচন করছি। নৌকার সঙ্গে লাঙ্গল নিয়ে যুদ্ধে নেমেছি।

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে বুধবার বেলা ১১টায় গণমাধ্যমের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু। এ সময় তিনি এ কথা বলেন।

তিনি জানান, আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে নির্বাচনি যুদ্ধে নেমেছে জাতীয় পার্টি। ক্ষমতাসীন দলটির সঙ্গে জোট করা ও আসন ভাগাভাগির সম্ভাবনা উড়িয়ে দেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব।

মহাজোটে জাতীয় পার্টি থাকবে তথ্যমন্ত্রীর এমন ইঙ্গিত প্রসঙ্গে চুন্নু বলেন, ‘জানি না তিনি ইঙ্গিত দেন কীভাবে। কারণ মহাজোটে বা জোটে থাকতে হলে তো, ইসিকে চিঠি দিয়ে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে জানাতে হবে। উনি হয়তো আবেগে বলতে পারেন, তবে আমরা তো জোট, মহাজোটের না। এককভাবে লাঙ্গল নিয়ে আমরা নৌকার সঙ্গে যুদ্ধে নেমেছি। যুদ্ধ করব, নির্বাচন যুদ্ধ হবে উনাদের সঙ্গে।’

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার সচিবালয়ে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ জাতীয় পার্টির তাদের সঙ্গে আছে এমন ইঙ্গিত দিয়ে বলেন, ‘জাতীয় পার্টি প্রায় ৩০০ আসনে মনোনয়ন দিয়েছে। তারা যেভাবে নির্বাচন যুদ্ধে নেমেছে, সে জন্য তাদের অভিনন্দন জানাই। জাতীয় পার্টির সঙ্গে ২০০৮ সালে আমরা জোটগতভাবে মহাজোট গঠন করেছিলাম, গতবারও তারা আমাদের সঙ্গে ছিল, এবারও সেটি হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

আওয়ামী লীগের সঙ্গে বৈঠক ও আসন ভাগাভাগি প্রসঙ্গে মুজিবুল হক চুন্নু বলেন, আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। তারা বলেছেন যে নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে তারা আমাদের সঙ্গে কথা বলতে চান। চেয়ারম্যানের সঙ্গে আলোচনা করে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, আমরা তাদের সঙ্গে কথা বলব। বৈঠকের জায়গা ঠিক হয়নি।

আওয়ামী লীগের সঙ্গে সমঝোতার ভিত্তিতে আসন ভাগাভাগি নিয়ে এক প্রশ্নে জাতীয় পার্টির মহাসচিব বলেন, ওই ধরনের কোনো দরকষাকষিতে আমরা নাই। আমাদের বার্গেনিং একটাই ইসির কাছে, যেন নির্বাচনটা সুষ্ঠু হয়। একটা ভালো পরিবেশ, বিশ্বাসযোগ্য পরিবেশ, ভোটাররা আসার যেন আস্থা পায়। আওয়ামী লীগের সঙ্গে কথা হলেও এই নির্বাচনের পরিবেশ নিয়েই আলোচনা হবে। এর বাইরে কোনো আলোচনা হবে এ রকম কোনো ইঙ্গিত, কথা আমরা জানি না।

অফিসিয়ালি আসন ভাগাভাগি নিয়ে কোনো প্রস্তাব জাতীয় পার্টিকে দেওয়া হয়নি জানিয়ে চুন্নু বলেন, আসন নিয়ে বৈঠক হবে এই ধরনের কোনো প্রস্তাব আমরা পাই নাই অফিসিয়ালি। অফিসিয়ালি প্রস্তাব পেয়েছি নির্বাচনি পরিবেশ, পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার।

মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে জাতীয় পার্টির বৈঠক হয়েছে- এমন গুঞ্জন প্রসঙ্গে চুন্নু বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আমাদের বৈঠক হয় নাই। আওয়ামী লীগের কয়েকজন সম্মানিত নেতা আমাদের চেয়ারম্যান জিএম কাদের ও আমাকে ফোনে বলেছে, নির্বাচনের পরিবেশ, পরিস্থিতি নিয়ে, নির্বাচনটা যাতে ভালোভাবে করা যায়, সবাই করতে পারে এ বিষয়ে কথা বলার জন্য। যেহেতু নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে কথা বলবেন, আমরা বললাম ঠিক আছে, আমরা কথা।বলবো এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আজকে (বুধবার) সন্ধ্যার পর উনাদের সঙ্গে বসব।

নির্বাচনি মাঠ বুঝতে সময় লাগবে জানিয়ে তিনি বলেন, ১৮ নভেম্বর প্রতীক বরাদ্দ হবে। তারপর যখন আমরা মাঠে খেলতে যাবো তখন মাঠের কী অবস্থা, দর্শক কী চায়, দর্শকের অবস্থা, দর্শক নিরাপদ কি না তখন বুঝতে পারবো। তখন আমরা একচুয়াল অবস্থা চিন্তা করবো। এর আগে অ্যাডভান্স কোনো সমস্যা বলা যাবে না।

আরও পড়ুন