মঙ্গলবার, ৫ই মার্চ, ২০২৪

সর্বশেষ

বাম-ডান, জামায়াত-হেফাজত-চরমোনাই সবাইকে এক হতে বললেন নুর

সরকারবিরোধী আন্দোলনকারী সব দলের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে গণঅধিকার পরিষদের (একাংশ) সভাপতি নুরুল হক নুর বলেছেন, নিজেরা বিভিন্ন ভাগে বিভক্ত হয়ে সরকারকে আর বিভাজনের ট্রাম্প কার্ড খেলতে দেওয়া যাবে না। বাম, ডান, জামায়াত, হেফাজত, চরমোনাই- সবাইকে এক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

ডাকসুর সাবেক এই ভিপি বলেন, ‘জামায়াত তাদের সক্ষমতা নিয়ে মাঠে থাকলে আন্দোলনের জন্য সেটা পজিটিভ। আমরা বিভাজিত থাকলে সরকারের লাভ। এদেশের নির্বাচন, ভোট কিভাবে হবে- সেটা এদেশের জনগণ ঠিক করবে। দিল্লির কথায় বাংলাদেশের নির্বাচন হবে না। দিল্লির কথায় এদেশে আর কোনো কিছু হবে না।’

বৃহস্পতিবার বিজয়নগর পানির ট্যাংক মোড়ে এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

‘তফশিল বাতিল, সরকারের পদত্যাগ ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে’ বিরোধী দলগুলোর ডাকা দশম দফা অবরোধের সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল ও সড়ক অবরোধ করে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে নুরের নেতৃত্বাধীন গণঅধিকার পরিষদ। দুপুর ১২টায় পুরানা পল্টন আল রাজী কমপ্লেক্সের সামনে থেকে মিছিল শুরু করে পল্টন মোড় ঘুরে বিজয়নগর পানির ট্যাংক মোড়ে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

সমাবেশে নুর বলেন, ‘সরকার এখন সংক্রামকে পরিণত হয়েছে। সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই সংক্রামক প্রতিরোধ করতে হবে। কে বাম, কে ডান, কে জামায়াত-হেফাজত-চরমোনাই তা এখন দেখার বিষয় না। আমাদের সবার লক্ষ্য এক, এই সরকারের পতন ঘটিয়ে দেশে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করা। নিজেরা বিভিন্ন ভাগে বিভক্ত হয়ে সরকারকে আর বিভাজনের ট্রাম্প কার্ড খেলতে দেওয়া যাবে না। আন্দোলনকারী সব দলের প্রতি অনুরোধ জামায়াতকে ইস্যু করে আপনারা আন্দোলনকে ক্ষতিগ্রস্ত করবেন না।’

তিনি বলেন, ‘যারা পাতানো নির্বাচনে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন তাদের প্রতি আহ্বান, আপনারা মনোনয়ন প্রত্যাহার করে আন্দোলনে যোগ দিন, জনগণ আপনাদের ক্ষমা করবে। বেঈমানদের কী হয় শাহজাহান ওমরকে দেখেন। গতকাল (বুধবার) আইনজীবীদের কেউ থুতু মেরেছে, কেউ জুতা মেরেছে। বেঈমান, মোনাফেকদের দুনিয়াতেও অপমান-অপদস্ত হতে হবে, আখিরাতেও হতে হয়।’

গণঅধিকার পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মো. রাশেদ খাঁন বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার আবারও একটি একতরফা নির্বাচনের দিকে যাচ্ছে।

সঞ্চালনা করেন গণঅধিকার পরিষদের উচ্চতর পরিষদের সদস্য আবু হানিফ। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন গণঅধিকার পরিষদের উচ্চতর পরিষদের সদস্য শাকিল উজ্জামান, শহিদুল ইসলাম ফাহিম, ফাতিমা তাসনিম, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসান আল মামুন, সহ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মোবারক হোসেন যুব পরিষদের সভাপতি মনজুর মোর্শেদ মামুন, সহ-সভাপতি ফখরুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রবিউল ইসলাম, ছাত্রঅধিকার পরিষদের সহ-সভাপতি সাব্বির হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হাসান, নেওয়াজ খান বাপ্পি, শ্রমিক অধিকার পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা সম্পদ, গণঅধিকার পরিষদ মহানগর দক্ষিণের সভাপতি নাজিম উদ্দিন, উত্তরের সভাপতি মিজানুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুুর রহিমসহ নেতাকর্মীরা।

আরও পড়ুন