বুধবার, ২২শে মে, ২০২৪

সর্বশেষ

প্রার্থিতা বাতিল আপিল ৩৩৮

রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তে প্রার্থিতা বাতিলের পক্ষে-বিপক্ষে এ পর্যন্ত ৩৩৮ জন আপিল করেছেন। আপিল দায়ের কার্যক্রম আরও দুই দিন চলবে। এরপর নির্বাচন কমিশন বসে আপিল শুনানি করে সিদ্ধান্ত দেবে।

বৃহস্পতিবার (৭ ডিসেম্বর) বিকালে নির্বাচন কমিশন সচিব মো. জাহাংগীর আলম আপিল দায়ের কার্যক্রমের অগ্রগতি বিষয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে এ তথ্য জানান।

নির্বাচন কমিশন এ পর্যন্ত ২০৫ জন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এবং ৩৩৮ জন থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বদলির প্রস্তাব অনুমোদন করেছে বলেও জানান সচিব।

ইসি সচিব বলেন, ৩০০টি সংসদীয় আসনে পদপ্রার্থী সংখ্যা ছিল ২ হাজার ৭১৬টি। এরমধ্যে যাচাই-বাছাইয়ে ৭৩১টি মনোনয়ন বাতিল হয়েছিল। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ৫ থেকে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত এর বিরুদ্ধে আপিল দায়ের সুযোগ রয়েছে। আজ তৃতীয় দিনসহ এ পর্যন্ত মোট ৩৩৮ টি আপিল দায়ের হয়েছে। প্রথম দিন আপিল দায়ের হয়েছিল ৪২টি, দ্বিতীয় দিন ১৪১টি এবং আজ তৃতীয় দিন ১৫৫টি।

সচিব জানান, এ আপিলগুলো ১০ তারিখ থেকে পর্যায়ক্রমে শুনানি হবে। পরবর্তীতে ১৭ ডিসেম্বর প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে ১৮ তারিখ প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে। তখন থেকে প্রচার প্রচারণা শুরু হবে।

ইসি ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, নির্বাচনি প্রচার চলবে ৫ জানুয়ারি সকাল ৮টা পর্যন্ত। আর ভোটগ্রহণ হবে ৭ জানুয়ারি রবিবার।

ওসি বদলি ও পদায়ন প্রসঙ্গে জাহাংগীর আলম বলেন, নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত ছিল থানা পর্যায় যারা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রয়েছে ওই কর্মকর্তাদের মধ্যে যাদের কর্মস্থলের কর্মকাল ছয় মাসের বেশি তাদের বদলির করার। মোট ৩৩৮ জন থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে বদলি ও পদায়নে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রস্তাব এসেছে। নির্বাচন কমিশন অনাপত্তি জানিয়েছে। এর প্রেক্ষিতে সংশ্লিষ্ট রেঞ্চ ও মেট্রোপলিটন পুলিশ তাদের বদলির আদেশ বাস্তবায়ন করবে।

তিনি বলেন, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে কমিশন প্রস্তাবনা দিয়েছিল যে সব উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কর্মকাল এক বছর বা তার বেশি হয়েছে তাদের বদলির জন্য। এর আলোকে নির্বাচন কমিশনের তিনটি ধাপে প্রস্তাব এসেছে। প্রথম ধাপে ৪৭ জনের, দ্বিতীয় ধাপে এসেছে ১১০ জনের এবং তৃতীয় ধাপে ছিল ৪৮ জনের। মোট ২০৫ জন ইউএনও এর বদলিতে নির্বাচন কমিশন সম্মতি দিয়েছে।

সচিব জানান ৪০তম বিসিএস এর নন ক্যাডার থেকে উপজেলা সহকারী নির্বাচন অফিসার হিসেবে নির্বাচন কমিশন ৮৩ জনকে আজ নিয়োগ দিয়েছে। তারা ১২ ডিসেম্বর নির্বাচন কমিশানে যোগ দেবেন।

ওসিদের বদলি পদায়ন প্রশ্নে সচিব বলেন, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নির্বাচনি এলাকার বাইরে বদলি করা হয়েছে। সেক্ষেত্রে কোথাও একই জেলায়, কোথাও জেলার বাইরে বদলি হয়েছে। নির্বাচনি এলাকার অবস্থানের ভিত্তিতে বদলি হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের নিয়োগ বিভাগের মধ্যে বদলি করা হয়েছে বলে তিনি এ সময় জানান।

কোনও কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গুরুতর কোনও অভিযোগ পেলে তদন্ত করে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও সচিব উল্লেখ করেন।

বিদেশি পর্যবেক্ষকের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিদেশি পর্যবেক্ষক হিসেবে এ পর্যন্ত ১৩১ জন রেজিস্ট্রেশন করেছেন। সাংবাদিক হিসেবে ৪৮ জন রেজিস্ট্রেশন করেছেন। মোট ১৬৯ জন রেজিস্টেশন করেছেন।

আরও পড়ুন