সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

সর্বশেষ

চট্টগ্রামে বিজয় দিবসের প্রথম প্রহরে পুষ্পস্তবক অর্পণ

আজ যথাযথ মর্যাদা ও উৎসবমূখর পরিবেশে মহান বিজয় দিবস ২০২৩ উদযাপন উপলক্ষ্যে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন বর্ণাঢ্য কর্মসূচির আয়োজন করা। দিবসের মূল কর্মসূচি শুরু হয় ১৬ ডিসেম্বর সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় এর শেখ রাসেল চত্বরে ৩১ বার তোপধ্বনির মধ্যদিয়ে। একই সময়ে চট্টগ্রাম মিউনিসিপ্যাল মডেল স্কুল এন্ড কলেজ প্রাঙ্গণে অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। সাথে সাথে সকল সরকারি, আধা-সরকারি, বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।
এসময় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম চৌধুরী, চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মোঃ তোফায়েল ইসলাম, পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায়, রেঞ্জ ডিআইজি নুরেআলম মিনা, জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান, পুলিশ সুপার এস এম শফিউল্লাহ্, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম জেলা ইউনিট কমান্ডার এ কে এম সরোয়ার কামাল বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিট কমান্ড এর ডেপুটি কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ শহীদুল হক চৌধুরীর নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ এবং বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও পেশাজীবী সংগঠন ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।
পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে চসিক মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, ১৯৭১ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর নেতৃত্বে সমগ্র বাঙালি জাতি ৯ মাসের সশস্ত্র মুক্তিযোদ্ধের মাধ্যমে স্বাধীনতা অর্জন করে। এসময় তিনি যাদের অত্মত্যাগের বিনিময়ে আজকে এই স্বাধীনতা সেই ৩০ লক্ষ শহিদ ও ২ লক্ষ মা বোনসহ সকল মুক্তিযোদ্ধাদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন। এসময় তিনি নতুন প্রজন্ম তাদের বুদ্ধিদীপ্ত মেধা ও প্রজ্ঞা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মানে কাজে লাগাবে এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
চট্টগ্রাম জেলা ইউনিট কমান্ডার এ কে এম সরোয়ার কামাল বলেন, ১৯৭১ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর মহমানের ডাকে সর্বস্তরের মানুষ সাড়া দিয়েছিল। তাদের বুকে তাজা রক্তের বিনিময়ে আজকের এই স্বাধীনতা। আজ স্বাধীনতার ৫৩ বছর, এখনো আমরা সাম্প্রদায়িকতা এবং অপশক্তির অপতৎপরতা থেকে মুক্ত হতে পারিনি। এসময় তিনি নতুন প্রজন্ম দেশকে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির অপতৎপরতা থেকে মুক্ত করবে এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

আরও পড়ুন