শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

সর্বশেষ

আস্থা রাখুন, নির্বাচন সুন্দর হবে: সিইসি

আচরণবিধি লঙ্ঘন করলে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল।

তিনি বলেছেন, কোথাও যদি আচরণবিধির লঙ্ঘন হয়ে থাকে, তাৎক্ষণিকভাবে যেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী যেন ব্যবস্থা গ্রহণ করে সেভাবে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আপনারা আস্থা রাখুন, নির্বাচন সুন্দর হবে।

বুধবার রাজশাহী জেলার ছয়টি সংসদীয় আসনের প্রার্থীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা শেষে সিইসি এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এদিন বেলা ১০টায় প্রার্থীদের সঙ্গে মত বিনিময়ে অংশ নেন সিইসি। প্রায় দেড় ঘণ্টা চলা এই সভায় নির্বাচনী পরিবেশ নিয়ে প্রার্থীরা বিভিন্ন বিষয়ে খোলামেলা আলোচনা করেন সিইসির সঙ্গে।

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে এবং ভোটাররা ভোটকেন্দ্রে আসবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার। তিনি বলেন, আমরা ও প্রার্থীরা মিলে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টির চেষ্টা করছি।

প্রার্থী ও ভোটারদের সহযোগিতায় নির্বাচনটা সফল হবে এই আশাবাদ ব্যক্ত করে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, নির্বাচনে যারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন তাদের সঙ্গে আমাদের মতবিনিময় হয়েছে। তারা অত্যন্ত আন্তরিক। কিছু কিছু সমস্যার কথা তারা বলেছেন। আমরা শুনেছি, স্থানীয় প্রশাসনও শুনেছে। সেই সমস্যাগুলো কীভাবে নিরসন করা যায়, সে বিষয়ে দিকনির্দেশনা দেয়া হয়েছে। কোথাও যদি আচরণবিধি লঙ্ঘন হয়ে থাকে বা সহিংসতা হয়ে থাকে, সে বিষয়ে যাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ব্যবস্থা গ্রহণ করে সে বিষয়ে বলা হয়েছে।

উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশে সিইসি বলেন, নির্বাচন স্বচ্ছ হওয়ার ক্ষেত্রে আপনাদেরও একটি ভূমিকা থাকবে।

এ সময় নির্বাচন কমিশনের অন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। রুদ্ধদ্বার ওই সভায় প্রার্থীদের অনেকে নানা অভিযোগ তুলে ধরেছেন বলে তারা জানিয়েছেন। সিইসি এসব বিষয়ে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার তথ্যমতে, রাজশাহীর ছয়টি আসনে ছয়জন স্বতন্ত্র প্রার্থী, ৩৪ জন দলীয় প্রার্থীসহ মোট ৪০ জন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। স্বতন্ত্র প্রার্থীদের প্রত্যেকেই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত।

আরও পড়ুন