শনিবার, ১৩ই জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ

নতুন মন্ত্রীদের একহাত নিলেন গোলাম মাওলা রনি

দ্বাদশ সংসদের নতুন মন্ত্রিসভা গঠনের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগ টানা চার মেয়াদে সরকার গঠন করেছে। অন্যদিকে টানা চার মেয়াদ থেকে ক্ষমতার বাইরে প্রধান বিরোধী দল বিএনপি।

তবে ক্ষমতায় না থাকলেও সরকার পতনের জন্য আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে দলটি। এরই অংশ হিসেবে এখনো সরকার পতনের কর্মসূচি চলমান আছে।

বর্তমান দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে খোলামেলা কথা বলেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনি।

এ সময় তার কাছে জানতে চাওয়া হয়, আওয়ামী লীগের মন্ত্রীরা শপথ নিলেন। শিক কাবাব, চিকেন সাসলিক, ভেটকি মাছের ফিশ ফিঙ্গার খেলেন। ঠিক সেদিনই আবার রিজভী সাহেব হাতুড়ি নিয়ে নয়া পল্টনের কার্যালয়ে তালা ভেঙে প্রবেশ করলেন। পাশাপাশি ৫ মাস পর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরলেন? একদিনেই সব ঘটল— এর রহস্য কী?

জবাবে গোলাম মাওলা রনি বলেন, যে মন্ত্রীরা শিক কাবাব খেলেন, তাদের আনন্দ-উল্লাসের কাছে জীর্ণশীর্ণ একটা অফিস খোলা তুলনীয় নয়। এটা মানুষ শুনতে চায় না। মানুষ শুনতে চায় যে, মন্ত্রীরা কাবাব খেয়েছেন। পাশাপাশি সাধারণ জনগণের দায়িত্বও বেড়ে গেছে। কারণ অনেক পদে পরিবর্তন এসেছে। গতবার যারা সিন্ডিকেট করেছিল, জনগণকে শোষণ করেছিল, টাকা-পয়সা মেরেছিল, তাদের বড় অংশই চলে গেছে। আসছে নতুন গ্রুপ। তাদেরও খায়েস আছে। তারা মানুষকে কীভাবে কাবাবময় করবে এটা নিয়ে মানুষ চিন্তিত।

ওই দিনই রিজভী সাহেবের তালা ভেঙে প্রবেশ প্রসঙ্গে রনি বলেন, ওই দিনই তালা ভাঙার উদ্দেশ হলো যে, আগামী বছরগুলোতে লড়াই করতে হবে, সংগ্রাম করতে হবে এবং নিজের পায়ে দাঁড়াতে হবে। সেদিনের হাতুড়িটা ছিল বিপ্লবী হাতুড়ি। বর্তমানে মন্ত্রী-এমপিরা যে ভোট চুরি ও জালিয়াতি করেছে, সারা দুনিয়ায় বাংলাদেশের বদনাম ছড়িয়েছে। বিশেষ করে ডামি-মামি যেসব রসায়ন ছড়িয়ে পড়েছে। ওই রসায়নের জন্য একটা আঘাত দরকার ছিল। সেই আঘাতটা শুরু করেছে অফিস খোলার মধ্য দিয়ে বিএনপি।

আরও পড়ুন