সোমবার, ২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪

সর্বশেষ

কথা দিচ্ছি আমি পারবো -স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আজ ১৮ জানুয়ারি, বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় রাজধানীর শেখ হাসিনা বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে প্রতিষ্ঠানটি কর্তৃক স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেনকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সামন্ত লাল সেন।
সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. সেন বলেন, “সারাজীবন মানুষের সেবা করে গেছি। আমার দুই সন্তান দেশের বাইরে থাকে। এই মন্ত্রীত্ব থেকে আমার একটিই চাওয়া, আমি যেন দেশের সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করে যেতে পারি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও সেটাই চান। এজন্য আমি শুরু থেকেই ঢাকা সহ দেশের তৃণমূলের হাসপাতালগুলো সরেজমিন পরিদর্শন করতে চাই। এরপর চিকিৎসা সেবাকে ঢেলে সাজাতে কাজ শুরু করে দিব। তবে, আমাকে কাজ শুরু করতে একটু সময় দিতে হবে। আমি গ্রামে-গঞ্জে চিকিৎসা সেবা দিয়ে এখানে উঠে আসা মানুষ। আমি কথা দিচ্ছি, সবাই আমাকে সহযোগিতা করলে আমি পারবো।”
সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মোঃ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, “আমরা প্রত্যেকেই আমাদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে মন্ত্রী মহোদয়কে সহযোগিতা করতে চাই। মন্ত্রী মহোদয় উদার মনের পরিশ্রমী মানুষ; দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে নতুন রূপে সাজাতে আমরা এক যোগে কাজ করবো।”
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকা স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব আজিজুর রহমান বলেন, “ডা. সামন্ত লাল সেন কেবল একজন চিকিৎসক বা মন্ত্রী নন। তিনি একজন জীবন্ত আইকন আমাদের। তিনি যেভাবে অসহায়, দগ্ধ পোড়া রোগীদের কথা ভেবে মানবিক চিকিৎসা দেন, সেভাবেই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে ঢেলে সাজাবেন এবং সেবার মান উন্নত করতে আমাদেরকে সঠিক গাইডলাইন ও নির্দেশনা দিবেন এটিই আমরা প্রত্যাশা করছি।”
শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ণ ও প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটের পরিচালক রেহেনা আওয়াল এর সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. জাহাঙ্গীর আলম, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব আজিজুর রহমান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, বিএসএমএমইউ ভিসি ডা. শারফুদ্দিন আহমেদ, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. টিটু মিয়া, শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ণ ও প্লাস্টিক সার্জারি ইন্সটিটিউটের সাবেক পরিচালক অধ্যাপক ডাঃ আবুল কালাম সহ মন্ত্রণালয়, অধিদপ্তর ও হাসপাতালের অন্যান্য উর্দ্ধতন কর্মকর্তা, চিকিৎসক, নার্সবৃন্দ।

আরও পড়ুন