বুধবার, ২২শে মে, ২০২৪

সর্বশেষ

জ্ঞানভাপি মসজিদের স্থান ছেড়ার দাবি বিশ্ব হিন্দু পরিষদের

ভারতে জ্ঞানভাপি মসজিদ সরিয়ে নিয়ে সেই স্থানটি হিন্দুদের কাছে হস্তান্তরের জন্য মুসলিমদের প্রতি আনুষ্ঠানিকভাবে আহ্বান জানিয়েছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ।

প্রকাশ্যে এ রিপোর্ট দেয়ার পর শনিবার (২৭ জানুয়ারী) বিশ্ব হিন্দু পরিষদ মুসলিমদের প্রতি ওই আহ্বান জানিয়েছে। ভারতের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের সার্ভেতে (এএসআই) নিশ্চিত করা হয়েছে যে, বারানসিতে জ্ঞানভাপি মসজিদ এখন যেখানে অবস্থিত, সেখানে একটি মন্দিরের অস্তিত্ব আছে।

তারা বলেছে, মসজিদটিকে যথোপযুক্ত স্থানে সরিয়ে নিতে এবং ওই স্থানটি হিন্দু সম্প্রদায়ের হাতে তুলে দিতে, যাতে তারা সেখানে একটি উপাসনালয় স্থাপন করতে পারেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন টাইমস অব ইন্ডিয়া।

বিশ্ব হিন্দু পরিষদের প্রেসিডেন্ট অলোক কুমার বলেছেন, আমরা ইন্তেজামিয়া কমিটির প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি জ্ঞানভাপি মসজিদটিকে সম্মানের সঙ্গে উপযুক্ত অন্য কোনো স্থানে সরিয়ে নিতে এবং কাশি বিশ্বনাথের অরিজিনাল এই স্থানটি হিন্দু সম্প্রদায়ের হাতে তুলে দিতে।

এর মধ্য দিয়ে দেখা যাচ্ছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ তার আগের অবস্থান থেকে বড় রকমের পরিবর্তন ঘটিয়েছে। আগে তারা বলেছিল, জ্ঞানভাপি মসজিদের সম্পদ দাবির ক্ষেত্রে তারা আগ্রাসি হবে না। অলোক কুমার প্লেসেস অব ওরশিপ (বিশেষ বিধান) অ্যাক্ট ১৯৯১ তুলে ধরেন।

তিনি আরও বলেন, বিশ্ব হিন্দু পরিষদ যে দাবি জানিয়ে এসেছে এতদিন তাই প্রতিফলিত হয়েছে এএসআইয়ের মূল্যায়নে। হিন্দু সম্প্রদায় ওই এলাকায় ‘সেবা পুজা’ করার অনুমতি চায়।

এর আগে ওই মসজিদের ওজুখানায় যে শিবলিঙ্গ পাওয়া গিয়েছিল সে প্রসঙ্গ তুলে ধরে তিনি বলেন, এতে কোনো সন্দেহ নেই যে ওই মসজিদের স্থানে মন্দির ছিল।

সেখানকার কাঠামোতে পাওয়া জনার্ধন, রুদ্র এবং উমেশ্বরা নামগুলো পাওয়া যাওয়ায় এটা প্রমাণ বহন করে যে এসব একটি মন্দিরের। তিনি আরও বলেন, প্লেসেস অব ওরশিপ অ্যাক্ট, ১৯৯১ এর ৪ নম্বর অনুচ্ছেদ অনুযায়ী ওই স্থাপনাকে হিন্দুদের একটি মন্দির হিসেবে ঘোষণা করা উচিত।

আরও পড়ুন