শুক্রবার, ১২ই জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ

অন্যের পিড়াপিড়িতে ‘ভালো নির্বাচন’ করতে চাই না-পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সরকারের ওপর বিদেশি কোনো চাপ নেই বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। তিনি বলেছেন, ‘আমাদের ওপর কোনো প্রেসার নেই। অন্যের পিড়াপিড়িতে নয়, বরং নিজেদের তাগিদেই আমরা ভালো নির্বাচন করতে চাই।’

আজ শনিবার রাজধানীর ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে ডিক্যাব টকে তিনি এসব কথা বলেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা মিসরের মতো কোনো ইলেকশন (বড় পার্টি) বাদ দিয়ে করতে চাই না। আমরা আফগানিস্তান কিংবা মিয়ানমারের মতো নির্বাচন করতে চাই না, যারা নিজেদের নির্বাচনকে ভালো ইলেকশন বলে সার্টিফাই করেছেন। আমরা সব দলকে নিয়ে নির্বাচন করতে চাই।’

‘আমরা চাই সব দল ইলেকশনে আসবেন। অবশ্য যারা আসবেন না, সেটা তাদের ব্যাপারে,’ বলেন তিনি। মন্ত্রী বলেন, ‘গত কয়েক বছরে অনেক নির্বাচন হয়েছে। দু-একটি বাদে সব কটি নির্বাচন স্বচ্ছ হয়েছে। ভবিষ্যতেও আমরা স্বচ্ছ নির্বাচন করব। তবে স্বচ্ছ নির্বাচনের জন্য সব দল-মতের ইচ্ছা এবং প্রতিশ্রুতি থাকতে হবে।’

নির্বাচনে জনগণের অংশগ্রহণের দিক থেকে উন্নত দেশের থেকে বাংলাদেশ এগিয়ে উল্লেখ করে আব্দুল মোমেন বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপের দেশগুলোতে ২৬-৩০ শতাংশ মানুষ ভোট দেয়। আমাদের দেশে ৭০ ভাগ মানুষ ভোট দেয়।’

সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সরকার অনেক পদক্ষেপ নিয়েছে জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘দুই-একটা রাজনৈতিক দল না আসলেও বেশির ভাগ দলই নির্বাচনে আসে। আমরা সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য অনেক পদক্ষেপ নিয়েছি। সরকার সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’

বিদেশিদের নিজের দিকে তাকানো উচিত জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘কোনদিন ভারতবর্ষে সন্ত্রাসী দল নির্বাচনে আসেনি। আমেরিকায় সন্ত্রাসী দল নির্বাচন করতে পারে না। আমাদের দেশে সন্ত্রাসী দল থাকতে পারে, তারা না আসলে কিছু যায় আসে না।’এ সময় অন্যের পিড়াপিড়িতে না, বরং নিজেদের তাগিদেই ভালো নির্বাচন করতে চান বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

সবাইকে নির্বাচন পর্যবেক্ষণে আমন্ত্রণ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা বিদেশিদের ওয়েলকাম জানাচ্ছি। তারা আসুক, দেখুক। তাহলে তারা পরে সার্টিফিকেট দেবে যে এটা একটা মডেল ইলেকশন। আমরা আশা করছি, আমাদের ইলেকশনটা বিশ্বে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।’

রাজনৈতিক দল হওয়ায় দেশের প্রত্যেক দলকে নির্বাচনে অংশগ্রহণের আহ্বান জানানোর কথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘ইউরোপীয়ান ইউনিয়ন, আমেরিকান বলেন, যেই আছেন আমরা প্রত্যেককে স্বাগত জানাব। আমাদের আসলে লুকানোর কিছু নেই। আমরা সবাইকে ভোট পর্যবেক্ষণের আহ্বান জানাব। তারা ভালো সাজিশন দিলে আমরা তাদের স্বাগত জানাব।’

নির্বাচন প্রক্রিয়া যাতে কেউ ধ্বংস না করে সে ব্যাপারে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে আব্দুল মোমেন বলেন, ‘কেউ ইলেকশন বানচাল করার চেষ্টা করলে দেশের অমঙ্গল ডেকে নিয়ে আসবেন। সে ক্ষেত্রে এ ব্যাপারে আপনার সবাই সজাগ থাকবেন।’

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন প্রক্রিয়া ধ্বংস করা মানে উন্নয়ন মহাসড়কের যে যাত্রা সব স্থগিত হয়ে যাবে। আমরা দেখতে চাই আমাদের গ্রহণযোগ্যতা আছে কি না। আমরা চাই বাংলাদেশে একটি সুন্দর গণতান্ত্রিক পরিবেশ সৃষ্টি হোক। আমরা জিয়া সাহেবের সেই হ্যাঁ-নার কালচারে যেতে চাই না। আমরা এখন এই কালচারে যেতে চাই যে আমরা ভোট আমি দেব, যাকে খুশি তাকে দেব। যদি সব দলের আন্তারিকতা থাকে তাহলে আমরা সুষ্ঠু, অবাধ, সহিংসতামুক্ত নির্বাচন করতে পারব।’

এ সময় সংলাপের বিষয়ে জানতে চাইলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সংলাপ, কার সঙ্গে সংলাপ? আমেরিকাতে কী কোনো সংলাপ করে? ওখানের প্রেসিডেন্ট কী নির্বাচনের আগে পদত্যাগ করেন? ইংল্যান্ডের প্রাইম মিনিস্টার কি পদত্যাগ করেন? এগুলো সব অবান্তর। এগুলো নিয়ে দুনিয়ার আর কোথাও কোনো রীতি নেই। সংবিধান অনুযায়ী আমরা আমাদের দেশে নির্বাচন করব।’

আরও পড়ুন