শুক্রবার, ১২ই জুলাই, ২০২৪

সর্বশেষ

পায়রা বন্দরের জেটিতে চতুর্থ কয়লাবাহী জাহাজ

পটুয়াখালীর পায়রা তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রের জন্য ৩৭ হাজার ৬৫০ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে আসা এমভি ওয়াই এম সামিট নামের বিদেশি জাহাজ সোমবার সকালে পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের জেটিতে নেয়া হয়েছে। সেখানেই কয়লা খালাস করা হবে বলে জানিয়েছেন পায়রা বন্দরের ট্রাফিক বিভাগের উপপরিচালক আজিজুর রহমান

এর আগে রোববার বিকেল ৪টায় জাহাজটি পায়রা বন্দরের আউটারেজে এসে পৌঁছায়। পায়রা তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রের জ্বালানি সংকট নিরসনে এ নিয়ে কয়লাবাহী চতুর্থ জাহাজ পায়রা সমুন্দবন্দরে নোঙর করলো। পরে জাহাজটিকে ইনার অ্যাংকারেজে নেয়া হয়েছে বলে জানায় বন্দর কর্তৃপক্ষ।

পায়রা বন্দর সূত্রে জানা যায়, পায়রা তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র বন্ধ হওয়ার পর বিদ্যুৎকেন্দ্রের উৎপাদন অব্যাহত রাখতে কয়লা নিয়ে আসা চতুর্থ জাহাজ মার্শাল আইল্যান্ডের পতাকাবাহী। তবে এটি ইন্দোনেশিয়ার বালিক পানান বন্দর থেকে পায়রা বন্দরে এসেছে। জাহাজটির দৈর্ঘ্য ১৯৯ দশমিক ৯০ মিটার, প্রস্থ ৩২ দশমিক ২৬ মিটার এবং গভীরতা ৯ দশমিক ৫০ মিটার।

বিষয়টি নিশ্চিত করে উপ-পরিচালক আজিজুর রহমান বলেন, রোববার বিকেল ৪টায় ৩৭ হাজার ৬৫০ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে এমভি সুমিত নামে একটি জাহাজ পায়রা বন্দরের আউটারেজে এসেছে। সেখান থেকে জাহাজটিকে বন্দরের ইনার অ্যাঙ্কোরেজে বিকেল ৪টা দিকে নিয়ে যাওয়া হয়। সোমবার কয়লা খালাস করা হবে বলেও জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, গত ৫ জুন কয়লা সংকটে পায়রা তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রটির উৎপাদন পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়। পরে গত ২ জুলাই ৩৬ হাজার ৫৭০ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে এমভি পাভো ব্রেভ নামের আরেকটি জাহাজ বন্দরে নোঙর করে। এরপরে গত ২২ জুন ৪১ হাজার ২০৭ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে এমভি এ্যাথেনা পায়রা বন্দরে ভিড়ে। ওই কয়লা দিয়ে ২৫ জুন বিদ্যুৎকেন্দ্রটি উৎপাদনে যায়। এছাড়া গত বৃহস্পতিবার (৬ জুলাই) ৩৬ হাজার ৬০০ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে এমভি জাদোর নামের তৃতীয় জাহাজ পায়রায় পৌঁছেছিল।

আরও পড়ুন